রাজ কুন্দ্রার লন্ডন কানেকশন! ভালই ব্যবসা ফেঁদেছিলেন

Spread the love
  • 403
  •  
  •  
  •  
    403
    Shares

রাজ কুন্দ্রার সম্পর্কে আবারও নতুন তথ্য সামনে এল।

গত কয়েক দিন ধরেই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন রাজ কুন্দ্রা।
সংবাদমাধ্যম সূত্রে সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য । সুদূর লন্ডনেও তাঁর কাজের জাল বিছিয়ে ছিলেন রাজ কুন্দ্রা ।

রাজ কুন্দ্রার ভগ্নীপতি প্রদীপ বক্সি ছিলেন লন্ডনের কোম্পানি ‘কেনরিন লিমিটেড’এর দেখা শোনার প্রধান দায়িত্বে। জানা যাচ্ছে এই কোম্পানির পিছনেই অশ্লীল পর্নোগ্রাফিক কনটেন্টের কাজ চালাতেন তিনি। এ ব্যাপারে বিস্তারিত ভাবে মুখ খোলেনি কোম্পানির কর্মীরা।

কোম্পানির এক কর্মীকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, “আমি মাত্র দুদিন এই কোম্পানি জয়েন করেছি। তাই ওনার ব্যাপারে আমি বিশেষ কিছুই জানিনা।”
তবে স্পষ্ট ভাবেই বোঝা যাচ্ছে প্রদীপ বক্সি অর্থাৎ রাজ কুন্দ্রার ভগ্নীপতি এই কোম্পানির সঙ্গে ভাল ভাবেই জড়িত।
মুম্বাইতে বসেই তিনি ঐ সমস্ত কাজের কন্টেন্ট যোগান দিতেন। যেহেতু রাজকুন্দ্রার সঙ্গে প্রদীপ বক্সির একটা আত্মীয়তার সম্পর্ক আছে তাই তাঁদের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট থেকে যে অনেক তথ্য মিলবে তা বিশ্বাস করাই যায়। তাই সংবাদমাধ্যমের হাতে উঠে এসেছে তাঁদের কিছু হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট। সেখান থেকে থেকে জানা যাচ্ছে, রাজ কুন্দ্রা এবং প্রদীপ বক্সি একটি ডিজিটাল অ্যাপ্লিকেশন নিয়ে কথা বলেছেন। সেটা হল ‘হটশট’। এই অ্যাপটি সাধারণত বিভিন্ন পর্নোগ্রাফিক মেটিরিয়াল এর জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে। অ্যাপেল এবং গুগল প্লেস্টোর থেকে অ্যাপটি সংগ্রহ করা হয়েছে। পরবর্তীকালে সেই অ্যাপটি কে রিস্টার্ট করে দেন তাঁরা।
আর এই ঘটনার ক্ষেত্রে প্রদীপ বক্সির যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ শুধু আত্মীয়ই নন প্রদীপ বক্সি ছিলেন রাজ কুন্দ্রার বিজনেস পার্টনারও।

2014 থেকে রাজ কুন্দ্রার পি.এ. ছিলেন উমেশ কামাদ। তিনিই রাজের এই কাজে সাহায্য করতেন। উমেশই ঐ সমস্ত ভিডিও গুলোকে বিভিন্ন ওওটি প্ল্যাটফর্মের পাবলিশ করতেন।

এই ঘটনা গুলি থেকে ভাল মতই বোঝা যাচ্ছে যে লন্ডনের সাথে রাজ কুন্দ্রার সরাসরি একটা সম্পর্ক ছিল।


Spread the love
  • 403
  •  
  •  
  •  
    403
    Shares