কি হবে সিনেমা হলের ভবিষ্যত ?

Spread the love

দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ সিনেমা হল।
এর প্রভাব পড়েছে সিনেমা হল,অভিনেতা, অভিনেত্রী এবং পরিচালক- প্রযোজকদের ওপর।

কি হবে সিনেমা হলের ভবিষ্যত?

অন্যান্য রাজ্যে আগেই খুলে দেওয়া হয়েছিল সিনেমা হল।

কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে এখানে খোলা হয়নি।

বৃহস্পতিবার রাজ্য সরকার সার্কুলার জারি করেন। তাতে বলা হয়েছে 50 শতাংশ দর্শক নিয়ে খোলা হবে সিনেমা হল গুলি।

তবে হল গুলি খুললেও প্রযোজকরা ছবি রিলিজ করাবেন কিনা তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

তবে আশার কথা অক্ষয় কুমার তাঁর ‘বেল বটম’ সিনেমাটি রিলিজ করার কথা বলেছেন।

প্রথম দফার নির্দেশিকায় রাজ্য সরকার সিনেমা হল খোলার প্রসঙ্গে কথা বলেননি। তাই বন্ধই ছিল সিনেমা হল গুলি।

কিন্তু দ্বিতীয় দফায় সরকার অনুমতি দিয়েছেন 50 শতাংশ দর্শক নিয়ে হল খোলার।

সিনেমা হল খোলার প্রসঙ্গে নানা মহলে উঠছে অনেক প্রশ্ন।

যেখানে টলিউডের এত অভিনেতা , পরিচালক রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত সেখানে হল খোলার বিষয়ে তাঁরা উদ্যোগী হচ্ছেন না কেন?

যদিও রাজ চক্রবর্তী তা মেনে নেননি।
তিনি জানান,” আমি ব্যক্তিগত ভাবে অনেকবার হল মালিকদের দাবি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে দিয়েছি। কোভিড পরিস্থিতি বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য সরকারি কমিটি আছে, তারা যেটা ভালো মনে করবে সেটাই হবে। সাংসদ বিধায়করা মুখ খুলে কি হবে? এখানে রাজনৈতিক রঙ চড়ানোর প্রবণতা স্পষ্ট। কিন্তু এগুলো নিয়ে তর্ক বাড়াতে চাইনা।”

ইতিমধ্যেই অক্ষয় কুমার জানিয়েছেন 19 আগস্ট ‘বেল বটম’ রিলিজ করবে।

এছাড়াও 5 ই আগস্ট মুক্তি পাচ্ছে হলিউড ছবি ‘দ্য সুইসাইড স্কোয়াড’।

আগে 15 ই আগস্ট একসাথে অনেকগুলো ছবি রিলিজ করত কিন্তু এবারে সেই সম্ভাবনা প্রায় নেই বললেই চলে।

বিরসা দাশগুপ্তর ছবি ‘মুখোশ’ ইতিমধ্যেই তৈরি। কিন্তু তা আদৌ রিলিজ করানো যাবে কিনা তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

রাজ চক্রবর্তী চেয়েছিলেন 15 আগস্ট অর্থাৎ স্বাধীনতা দিবসে তাঁর ছবি ‘ধর্মযুদ্ধ’ রিলিজ করাতে।
কিন্তু সেটাও সম্ভব হচ্ছে না।
রূপমন্দিরের মালিক শান্তনু রায়চৌধুরী বলেন, তিনি হল খোলার ব্যবস্থা করছেন।
নবীনার মালিক নবীন চৌখানি জানান, “ভাল কনটেন্ট পেলে আমি হল খুলে দেব।”

তবে দর্শক টানতে হিন্দি ছবিই যে ভরসা তা মানতে সকলেই বাধ্য হচ্ছেন।


Spread the love